১৩ জুন, ২০২১রবিবার

১৩ জুন, ২০২১রবিবার

খাবারের পাতেই নাচছে অক্টোপাস!

বাঙালির রোজকার পাতে মাছ মাংস সহ আমিষ খাবারের কম পদ থাকে না। কিন্তু যদি আপনি দেখেন আপনার খাবারের থালায় মাছের বাটি থেকে জ্যান্ত মাছ লাফাচ্ছে, কিংবা মুরগী অথবা পাঁঠার মাংসের বাটি থেকে আচমকাই ডেকে উঠছে পদের প্রাণীটি তাহলে পিলে চমকে যেতে বাধ্য। খাবারের পাতে জ্যান্ত খাবার দেখে বাঙালির ভীতি অথবা ঘেন্না জন্মাতেই পারে, কিন্তু জাপানিদের কিন্তু এমন কিছুই হয় না। বরং তারা বেশ তৃপ্তি সহকারে সে দেশের বিখ্যাত ‘কাতসু ইকা ওডোরি ডন’ নামক জ্যান্ত খাদ্যটি খেয়ে রসনায় তৃপ্তি ঘটান। এই ‘কাতসু ইকা ওডোরি ডন’ এর বাংলা মানে করলে দাঁড়ায় নৃত্যরত স্কুইড। 

 

সোশ্যাল মিডিয়ায় ধারাবাহিকভাবে ভিডিও ভাইরাল হওয়াতে এই ‘নৃত্যরত স্কুইড’ ডিশটি সারা বিশ্বজুড়ে উন্মাদনার সৃষ্টি করেছে। আসলে এই স্কুইড বা অক্টোপাসটি কিন্তু মোড়েও জীবিত নয়। স্কুইডের এই নাচের কারণ আসলে ক্যামিকেল প্রসেস। যেখানে স্কুইডটিকে সোয়া সসের মধ্যে নুন দিয়ে ডোবানো হয়। আর এই সয়া সসে নুনের কারণে একটি রাসায়নিক প্রক্রিয়া হয় যার ফলে স্কুইডটি নড়াচড়া করে আর একেই বলা হয় ‘নাচ’। 

আরও পড়ুন
২০০০ বছর আগে হারিয়ে গিয়েছিল যে ফল, আবারও খুঁজে পেলেন প্রত্নতাত্ত্বিকরা

সয়া সস ছেটাতেই নাচতে শুরু করে স্কুইড

ঐতিহ্যগতভাবে কাতসু ইকা ওডোরি-ডন বলে প্রচলিত এই নাটকীয় খাবারটিতে থাকে ভাত বা নুডলসের সঙ্গে ফিশ রো বা ডিম, সামুদ্রিক শৈবাল এবং তাজা স্কুইড বা কটল ফিশ। এটি মূলত আওমোরি এবং হোক্কাইডোর মতো জাপানের উপকূলীয় অঞ্চলের আশেপাশের রেস্তোঁরাগুলিতে পাওয়া যায়। এবং এই ঐতিহ্যবাহী জাপানী খাবারটির প্রচলন হয়েছিল এই উপকূলীয় অঞ্চলগুলিতেই।  যদিও ‘ওদরি-ডন ডিশ’টির ইতিহাস ইকা ওডোরি-ডনের উৎপত্তি নিয় কিছুটা বিতর্ক তৈরি করেছে।

 

 

কেউ কেউ মনে করেন যে এটি জাপানের পুরোনো অভ্যাস ওদোরিগুইয়ের একটি আধুনিক সংস্করণ, যার অর্থ “নাচের খাওয়া”। আসলে কিছু খাওয়ার একটি প্রথা বিশেষত জ্যান্ত ছোটো মাছ।  এছাড়াও মনে করা হয় যে এই ডান্সিং স্কুইড ডিশটি আরও প্রচলিত জাপানি প্রথা  ইকইজুকুরি থেকেও আসতে পারে, এটা তখন হয় যখন একজন শেফ জীবিত সামুদ্রিক প্রাণী দিয়ে সশিমি প্রস্তুত করে থাকেন। এ প্রসঙ্গে একজন অভিজ্ঞ ফুড ব্লগার বলেছেন যে এই ধরণের জীবন্ত প্রাণী খাওয়ার অভ্যাস জাপানে প্রচলিত হয়েছিল  ধন-সম্পদ প্রদর্শনের জন্য।

আরও পড়ুন
দীর্ঘ ২৭০০ বছর ধরে দেশ শাসন করে চলেছে এই রাজপরিবার, ১২৬ জন সম্রাট বসেছেন সিংহাসনে

এই নৃত‍্যরত স্কুইড খাবারটির সম্পর্কে আরও একটি মত হল, এটি কোরিয়ান ডিশ সন্নাকজী অনুপ্রাণিত, যা জীবন্ত অক্টোপাস দিয়ে তৈরি হয়। তবে কিছু বিশেষজ্ঞদের বিশ্বাস করেন যে নৃত‍্যরত স্কুইডের এই খাবারটি আসলে শুধুমাত্র আধুনিক সময়ের সোশ্যাল মিডিয়ার একটি দান, যা জাপানের হাকোডাতে উপকূলীয় অঞ্চলে অবস্থিত ইক্কাতেই তাবিজি রেস্তোঁরায়ের মতো একাধিক রেস্তোরাঁয় আকর্ষণীয় খাবার উপস্থাপনা করার একটি ব‍্যাবসায়িক পদ্ধতি।

 

এই ডান্সিং স্কুইড ডিশটি এক যুগ আগে প্রথম বিশ্ববাসীর মনোযোগ আকর্ষণ করে যখন ইক্কাতেই তাবিজি রেস্তোঁরাটি যখন গোটা স্কুইডের শরীর সহ ওদোরি-ডন পরিবেশন করা শুরু করে। যখন বাটিতে থাকা স্কুইডের উপর সোয়া সস ছেটানো হয় তখন বাটির উপর স্কুইডটি নাচতে শুরু করে। এরপরই এটি দ্রুত অনলাইনে হইচই ফেলে দেয় এবং এই খাদ্যটি জাপানি এবং বাকি বিশ্বের খাদ্যরসিকদের কাছে এইটি দর্শনীয় ঐতিহ্য হয়ে ওঠে। তবে এই জনপ্রিয় খাবারটিও বিতর্কের উর্ধ্বে নয়। একদল প্রশ্ন তোলেন যে যদি স্কুইডটি মৃতই হয় তবে তা কিভাবে নাচতে সক্ষম? আর যদি জীবিত হয় তবে তা নৃশংসতার উদাহরণ।

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Stay Connected

7,808FansLike
19FollowersFollow

Latest Articles

error: Content is protected !!