১৩ জুন, ২০২১রবিবার

১৩ জুন, ২০২১রবিবার

তিয়েনআনমেন দিবসে বিক্ষোভ কর্মসূচি আটকাতে হংকংয়ে আটক গণতান্ত্রিক নেত্রী চৌ হাং-তুং

লাল চিনের ইতিহাসে ১৯৮৯ সালের ৪ জুন দিনটি সবচেয়ে বিতর্কিত। ঐদিন তিয়েনআনমেন স্কোয়ারে গণতন্ত্রকামী হাজার হাজার ছাত্রের উপর দিয়ে চিন সেনা ট্যাঙ্ক চালিয়ে দেয়। পরবর্তীকালে দেশে এই নিয়ে কোনোরকম আলোচনা নিষিদ্ধ ঘোষণা করে চিন সরকার। কিন্তু চিনের অন্তর্গত হংকংয়ে প্রতিবছর তিয়েনআনমেন স্কোয়ারের বর্ষপূর্তির দিনটি গণতন্ত্র দিবস হিসেবে পালন করা হয়। সেখানকার গণতন্ত্রকামী হাজার হাজার মানুষ হংকং সিটির প্রাণকেন্দ্র ভিক্টোরিয়া পার্কে সমবেত হয়ে চিনা আগ্রাসনের প্রতিবাদ জানায়।

 

গতবছর করোনা মহামারীর কারণে এই প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করা হয়নি। কিন্তু এবারে চীন ও হংকং এর পরিস্থিতি তুলনায় অনেকটা ভালো হলেও প্রতিবাদ কর্মসূচির অনুমতি দেয়নি হংকং প্রশাসন। উল্লেখ্য চিন সরকারের প্রতি হংকংয়ের প্রশাসকরা অত্যন্ত বেশি মাত্রায় অনুগত। প্রতিবাদ কর্মসূচির অনুমতি খারিজ করে দেওয়ার পাশাপাশি সেখানকার গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার দাবিতে চলে আসা আন্দোলনের প্রথম সারির নেত্রী চৌ হাং-তুং কে শুক্রবার সকালেই গৃহবন্দী করে ফেলা হয়।

আরও পড়ুন
দিল্লিতে রেকর্ড গড়ল ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে মৃত্যুর হার, ওষুধ নিয়ে কেন্দ্রকে কাঠগড়ায় তুললেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

হংকং এর সাধারণ মানুষ বারবার অভিযোগ করেছে চিন ব্রিটেনের সঙ্গে করা চুক্তি মানছে না। তারা হংকংয়ের স্বাতন্ত্র্য বজায় রাখতে চায় না। বরং মূল ভূখণ্ডের মত সেখানেও একদলীয় শাসন ব্যবস্থা চাপিয়ে দিতে চায়। এই নিয়ে গত কয়েক বছরে হংকংয়ের গণতন্ত্র প্রেমী সাধারণ মানুষ রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখিয়েছে। এমনকি সেখানকার বিমানবন্দরে জমায়েত করে তারা বিমান যোগাযোগ ব্যবস্থা পর্যন্ত বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছিল। যদিও প্রতিটা বিক্ষোভ চিন ঘনিষ্ঠ হংকং প্রশাসন কড়া হাতে দমন করে।

 

চৌ হাং-তুং হংকং গণতান্ত্রিক জোটের সহকারী চেয়ারম্যান পদে আছেন। ৩৭ বছরের এই নেত্রীর নেতৃত্বে সে দেশে একাধিক চিন বিরোধী জমায়েত হয়েছে। প্রতিবছর তিয়েনআনমেন স্কোয়ার দিবসের দিন হংকং এর সাধারণ মানুষ সন্ধ্যেবেলায় ভিক্টোরিয়া পার্কে সমবেত হয়ে মোমবাতি জ্বালিয়ে চিনা আগ্রাসনের প্রতিবাদ জানায়। এবারেও প্রশাসনের কাছে নিয়মমাফিক এই প্রতিবাদ কর্মসূচির অনুমতি চাওয়া হয়েছিল। কিন্তু হংকং প্রশাসন সেই অনুমতি বাতিল করে দেয়। উল্টে শহরের কোথাও যাতে কোনরকম প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন না করা যায় সেইজন্য গণতন্ত্রকামী নেতাদের আটক করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। শুক্রবার সকাল থেকেই শহরের সর্বত্র বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

আরও পড়ুন
ভোটের আগে সিধু শিবিরের বিদ্রোহের মুখে পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী, তারই মধ্যে আপের ঘর ভাঙলো কংগ্রেস

তিয়েনআনমেন স্কোয়ারের ঘটনা বারবার বিব্রত করেছে চিনা শাসকদের। উল্লেখ্য ১৯৮৯ সালে চিনা কমিউনিস্ট পার্টির একদলীয় শাসনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে গর্জে ওঠে সেখানকার ছাত্রসমাজ। তারা গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার দাবিতে বেইজিংয়ের তিয়েনআনমেন স্কোয়ারে সমবেত হয়ে প্রতিবাদ জানাতে থাকে। কিন্তু আন্দোলনকারীদের সঙ্গে আলোচনার পরিবর্তে চিন সরকার যুদ্ধ ট্যাঙ্ক নামায়। চিনের পক্ষ থেকে সরকারিভাবে জানানো হয় ঐদিনের সামরিক অভিযানে প্রায় একশো মত ছাত্র-ছাত্রী নিহত হয়েছে। কিন্তু বেসরকারি মতে এই হিসেবটা এক হাজারেরও বেশি!

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Stay Connected

7,808FansLike
19FollowersFollow

Latest Articles

error: Content is protected !!